শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০ ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, সময় : সকাল ৮:০৩

আগামী ২মাসের মধ্যে লোহাগাড়াকে মাদক শূণ্যে করার ঘোষণা দিলেন ওসি জাকের


প্রকাশের সময় :২৮ জুলাই, ২০২০ ৭:১৭ : অপরাহ্ণ

 

রায়হান সিকদার,লোহাগাড়াঃ

লোহাগাড়ায় জুলাই মাসে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে এবং উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোট ১লক্ষ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। ১লক্ষ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটের আনুমানিক মুল্য ৩ কোটি টাকা হবে বলে জানা গেছে। ইতিমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা হতে স্হানীয় মাদক কারবারীদেরকেও আটক করে চট্টগ্রাম আদালতে সৌপর্দ করা হয়েছে।
এসব অভিযানে নেতৃত্ব দেন লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) জাকের হোসাইন মাহমুদ, পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) মুহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম, এসআই গোলাম কিবরিয়া।

আগামী ২মাসের মধ্যে লোহাগাড়াকে মাদক শূণ্য লোহাগাড়া হিসেবে উপহার দিতে চান ওসি জাকের হোসাইন মাহমুদ।

ওসি জানান, লোহাগাড়ায় মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছি। মাদক কারবারিরা কিংবা মাদকসেবীরা লোহাগাড়ায় থাকবে, না হয় পুলিশ থাকবো। মাদক ব্যবসায়ী ও সেবীরা লোহাগাড়া ছাড়ুন,নইলে এদের পরিণতি হতে পারে ভয়াবহ।আপনারা ভাল হয়ে যান। তিনি আরও জানান,লোহাগাড়ার মাদক ব্যবসায়ী ও সেবীরা থানায় আত্নসমর্পণ করুন, থানায় এসে নিজ থেকে আত্নসমর্পণ করলে তাদেরকে কোন হয়নারী কিংবা কর হবে না। তাদেরকে দেওয়া হবে পূর্ণবাসনের সুবিধা। লোহাগাড়ায় কোন ধরণের মাদক ব্যবসা ও সেবন চলবেনা। মাদক ব্যবসায়ীদের ও সেবীদের হুশিয়ার দিয়ে ওসি জাকের হোসাইন জানান, মাদক ব্যবসায়ী ও সেবীদের বলছি, আপনারা ভাল হয়ে যান, নতুবা থানায় এসে আত্নসমর্পণ করুন।ভালো হয়ে যান, নইলে চরম পরিণতি ভোগ করতে হবে।লোহাগাড়া থেকে মাদক সম্পূর্ণরূপে নির্মুল করা হবে ইনশাল্লাহ।

তিনি বলেন, মাদকের ক্ষেত্রে কোনো ছাড় নেই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশে মাদকের ব্যাপারে পুলিশ জিরো টলারেন্স ভূমিকা পালন করছে।
মাদকের সঙ্গে যারা জড়িত তাদেরকে চিহ্নিত করা হচ্ছে। তাদের ভালো হওয়ার সুযোগ দেয়া হবে। তারা ভালো না হলে অবশ্যই আমরা তাদের নির্মুলে কঠোরভাবে আইনানুগ ব্যবস্হা নিবো।
ওসি আরও জানান, মাননীয় পুলিশ সুপার মহোদয় ও সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহোদয়ের নির্দেশক্রমে আমাদের থানা পুলিশের টিম জুলাই মাসে সেরা পারফরমেন্স করেছি। সর্বোচ্চ ১ লক্ষ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার এবং অনেক মাদক বিক্রেতাকেও আটক করতে সক্ষম হয়েছি।১ লক্ষ পিচ ইয়াবার মুল্য আনুমানিক ৩ কোটি টাকা হবে বলেও তিনি জানান।
আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
মাদক বিক্রেতা ও সেবী যে দলের হোক না কেন কাউকে আমরা ছাড় দিবোনা।

তিনি এ ব্যাপারে উপজেলার সকল জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

ট্যাগ :