মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সময় : দুপুর ১:৩০

চট্টগ্রাম বিআরটিএতে রহস্যজনক আগুনে পুড়ল গুরুত্বপূর্ণ দলিল!


প্রকাশের সময় :১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ৪:৪৪ : অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

চট্টগ্রামের নতুন পাড়াস্থ বিআরটিএ অফিসের মুল ভবনের সার্ভার রুমে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। ঠিক যখন কয়েকজন অফিসারের বিরুদ্ধে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ উঠার পর। তবে নিছক দুঘর্টনা নাকি অগ্নি সংযোগ এ নিয়ে রহস্য দেখা দিয়েছে। ভবনের যে রুমটিতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে তার সামনে থাকা অনেকগুলো নথি পুড়ে গেছে বলে কর্মকর্তারা স্বীকার করলেও তার পাশের দরজা স্পর্শই করেনি বলে জানিয়েছেন মোটরযান পরিদর্শক মো. আনোয়ার হোসেন। পাশে আরো অনেক রুম থাকলেও অন্য কোন রুমে আগুন লাগেনি। তবে রহস্যের বিষয় এটি যে ২য় তলার ওই রুম থেকে আগুন চলে এসেছে নিচ তলার গুদামে। এদিকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত বলে দাবি করছে ফায়ার সার্ভিস।

 

খবর পেয়ে হাটহাজারী ও বায়েজিদ ফায়ার স্টেশনের ৫ টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ১ ঘন্টা ৪৭ মিনিট চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে কোন হতাহত না হলেও গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র পুড়ে যাওয়া আশঙ্কা করছে ফায়ার সার্ভিস। ফায়ার সার্ভিস চট্টগ্রাম অঞ্চলের (২ ও ৩) উপ সহকারি পরিচালক ফরিদ আহমেদ চৌধুরী এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত হতে পারে তবে ক্ষয় ক্ষতির পরিমান তাৎক্ষনিকভাবে নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। ২য় তলা থেকে আগুন নিচ তলায় কিভাবে আসলো এমন প্রশ্নের সন্তোসজনক উত্তর পাওয়া যায়নি।

তবে অগ্নিকান্ডের বিষয়টি নিয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে পরিবহন শ্রমিক, মালিক ও বিআরটিএ এর কর্মচারিদের মাঝেও রয়েছে সন্দেহ বলে জানিয়েছেন। অভিযোগ আছে বিআরটিএ কতিপয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সম্প্রতি না অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ওই অনিয়মের সাথে জড়িত দালাল চক্রের সদস্য গতকালও ওই অফিসে গিয়েছিল সেখানে কোন চক্রান্ত হয়েছে কিনা তাও একেবারে উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছেনা।এছাড়া কোন রকম ফাইল ছাড়াই বা ভুয়া ফাইল তৈরির মাধ্যমে শতাধিক বেবি টেক্সি গাড়ির বদলে সিএনজিতে মালিকানা পরিবর্তণ করা হয়েছে এই বিষয়ে জানতে চেয়েছিল সাংবাদিক কিন্তু তার জবাব দেওয়ার মুহুর্তে এই অগ্নিকান্ডে কোন রহস্য আছে কিনা তা খতিয়ে দেখার দাবি জানিয়েছে পরিবহন শ্রমিক নেতারা।
শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এই বিষয়ে কোন তদন্ত কমিটি হয়নি এবং কি পরিমান ক্ষক্ষতি হয়েছে কি কি নথি পুড়েছে তা জানা যায়নি।

 

অগ্নিকান্ডের ঘটনায় বিআরটিএ’র কোন যোগসাজশ বা গাফিলতি আছে কিনা জানতে বিভাগীয় উপ-পরিচালক মো. শহিদুল্লাহ এবং মেট্রো সার্কেলের সহকারি পরিচালক তৌহিদুল হোসেনকে একাধিকবার ফোন করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি

 

সিএস/কেসিবি /৪ঃ৩৬পিএম

ট্যাগ :