সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৮:১৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
ব্যাংকে পর্যাপ্ত টাকা আছে ;রিজার্ভ সমস্যা নেই,: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম নগরীর  হালিশহর থেকে ৫০০ বস্তা চিনি জব্দ লোহাগাড়ায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসচেতনতামুলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত বিএনপি চেয়ারপারসন আন্ডারমেট্রিক : নওফেল আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছে সশস্ত্র বাহিনী : প্রধানমন্ত্রী বড়হাতিয়ায় ইউনিব্লক দ্বারা রাস্তা উন্নয়নের পরিকল্পনা চট্টগ্রামের পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালিয়ে আসামী ছিনতাই; পুলিশ ফাঁকা গুলি যে রিজার্ভ আছে, ৫ মাসের আমদানি ব্যয় নির্বাহ করা সম্ভব: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম ইপিজেডে পোশাক চুরির অভিযোগে আটক ৩ চট্টগ্রাম নগরীতে বিনামূল্যে রিক্সা চালকদের টিকা প্রদান

চট্টগ্রামের পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালিয়ে আসামী ছিনতাই; পুলিশ ফাঁকা গুলি

চট্টগ্রাম নগরীর চান্দগাঁও থানার কালুরঘাট ফাঁড়িতে হামলা চালিয়ে হ্যান্ডকাফসহ মো. হানিফ ও দেলোয়ার নামে দুই ইয়াবা পাচারকারীকে কেড়ে নিয়ে গেছে তার অনুসারীরা। এসময় আহত হয়েছেন দুই পুলিশ সদস্য। নিজেদের আত্মরক্ষা ও হামলাকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছুড়ে।

শনিবার (১৯ নভেম্বর) সন্ধ্যার পর এ ঘটনা ঘটেছে। দুই আসামীর মধ্যে হানিফ মধ্যম মোহরা ৮ নম্বর ব্রিজ সংলগ্ন লোকমান সওদাগরের ছেলে ও দেলোয়ারের পুরো পরিচয় জানা যায়নি।

এদিকে পুলিশ ফাঁড়ি থেকে আসামি ছিনিয়ে নেয়ার পর ফাঁড়িতে আসামি না রাখতে সব থানায় নির্দেশনা দিয়েছে নগর পুলিশ।

নগর পুলিশের উত্তর জোনের উপ-কমিশনার মোখলেছুর রহমান বলেন, সন্ধ্যায় দেলোয়ার ও হানিফ নামে দুই মাদক পাচারকারীকে পাঁচ হাজার ইয়াবাসহ কালুরঘাট এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদেরকে কালুরঘাট পুলিশ ফাঁড়িতে নেয়া হয়। এসময় তাদের কয়েকজন অনুসারী তৃতীয় লিঙ্গের কিছু মানুষ জড়ো করে ফাঁড়িতে হামলা চালায় এবং তাদের ছিনিয়ে নেয়। এ সময় আত্মরক্ষার্থে পুলিশও ফাঁকা গুলি ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে। এ ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

ছিনিয়ে নেয়া দুই মাদক পাচারকারীকে ধরতে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন ডিসি মোখলেছুর রহমান।

স্থানীয় লোকজন জানান, পাঁচ হাজার ইয়াবাসহ হানিফ ও দেলোয়ার নামে দুই ব্যক্তিকে শনিবার সন্ধ্যায় কালুরঘাট এলাকা থেকে আটক করে পুলিশ। আটকের পর এক হাতে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে তাদের চান্দগাঁও থানার কালুরঘাট পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। পুলিশের গাড়ি থেকে নামানোর পর হ্যান্ডকাফসহ দুইজনই দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। পেছনে পেছনে পুলিশের কনস্টেবলরাও তাদের ধরতে দৌড় দেয়। হানিফকে আটকের খবর পেয়ে একই সময় তৃতীয় লিঙ্গের ২৫ থেকে ৩০ জনসহ তার অনুসারীরা কালুরঘাট ফাঁড়িতে ইট পাটকেল ছুঁড়ে মারে। হানিফের বোনও তৃতীয় লিঙ্গের লোক। তার নেতৃত্বে পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালানো হয়।