শনিবার, ৬ মার্চ ২০২১ ২১শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, সময় : বিকাল ৪:৩৯

চন্দনাইশ ও ফটিকছড়ির ৮ অবৈধ ইটভাটা গুঁড়িয়ে দিয়েছে প্রশাসন


প্রকাশের সময় :১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ৬:৩৩ : অপরাহ্ণ
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
পরিবেশগত ছাড়পত্র ও জেলা প্রশাসকের ইট পোড়ানো লাইসেন্সবিহীন অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযানের অংশ হিসেবে পরিবেশ অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসন চট্টগ্রামের সম্মিলিত অভিযানে পরিবেশ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের আওতাধীন চট্টগ্রাম জেলার চন্দনাইশ ও ফটিকছড়ি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ ভাবে গড়ে উঠা ৮ টি ইটভাটা ভেঙে গুড়িয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

আজ বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী সকাল ১০ঃ০০ টা থেকে বিকাল ৫ঃ০০ টা পর্যন্ত পরিচালিত অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজোয়ানা আফরিন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল আলম । অভিযানে চট্টগ্রাম পরিবেশ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শেখ মোজাহিদ, পরিদর্শক নুর হাসান সজিবসহ র্যাব, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

দিনব্যাপি পরিচালিত অভিযানে চন্দনাইশে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজোয়ানা আফরিন এবং ফটিকছড়িতে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল আলম।

অভিযানে চন্দনাইশ, বাগিচাহাটের হাশিমপুর এলাকার মেসার্স বিসমিল্লাহ্‌ ব্রিকস ম্যানুঃ, মেসার্স বার আউলিয়া ব্রিকস ম্যানুঃ, হযরত আলী শাহ(রাহঃ) ব্রিকস, পূর্ব হাশিমপুরের গাবতল এলাকার মেসার্স আর বি এল ও মেসার্স আলী শাহ ব্রিকস ফটিকছড়ির, ভুজপুর বৈদ্যেরহাট এলাকার মেসার্স জে এন ব্রিকস ম্যানুঃ, মেসার্স হালদা ব্রিকস ইন্ডাঃ এবং ফটিকছড়ির পাইন্দং এলাকার গ্রামীণ ব্রিকস ম্যানুঃ সহ ৮ টি ইটভাড়া ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজোয়ানা আফরিন জানান, চন্দনাইশ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অবস্থিত ইটভাটা গুলো দীর্ঘদিন ধরে কোন ধরণের ছাড়পত্র ছাড়া অবৈধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে এবং প্রতিনিয়ত পরিবেশ ধ্বংস করে চলেছে। অভিযানে ইটভাটাগুলোর চিমনীসহ গুড়িয়ে দিয়ে এগুলোর কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়। অভিযানে কাঁচা ইট ও ইট তৈরীর সরঞ্জামাদি ধ্বংস করা হয়। অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল আলম জানান, ফটিকছড়ির ভুজপুর এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে উঠা ইটভাটা গুলো দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। ইটভাটা ব্যবসা পরিচালনা করার কোন ধরণের ছাড়পত্র নেই। প্রতিনিয়ত পরিবেশ ধ্বংস করে চলেছে। অভিযানে ইটভাটাগুলোর চিমনীসহ গুড়িয়ে দিয়ে এগুলোর কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। অভিযানে কাঁচা ইট ও ইট তৈরীর সরঞ্জামাদি ধ্বংস করা হয়। অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

পরিবেশ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শেখ মোজাহিদ জানান, উচ্চ আদালতের নির্দেশে আজকে চন্দনাইশ ও ফটিকছড়ির বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ ভাবে গড়ে উঠা ৮টি ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালিত হয় । অভিযানে চন্দনাইশ এলাকার ৫টি ও ফটিকছড়ির ৩টি ইটভাটা ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। যে গুলোর কোন বৈধ কাগজপত্র ও অনুমোদন নেই। অবৈধভাবে গড়ে উঠা সকল ইটভাটা ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়া হবে।

সিএসপি/কেসিবি/৭ঃ৪৫পিএম

ট্যাগ :