সোমবার, ৫ এপ্রিল ২০২১, ২২শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, সময় : রাত ১০:৩১

নির্বাচনী আচরণবিধি মনিটরিংয়ে মাঠে সক্রিয় ৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট


প্রকাশের সময় :১৫ জানুয়ারি, ২০২১ ২:০৭ : অপরাহ্ণ
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী আচরণবিধি সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬” মনিটরিং এ নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছে জেলা প্রশাসন। এরই ধারাবাহিকতায় আজকে জেলা প্রশাসনের ৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নগরীর বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার ১৪ জানুয়ারি বেলা টা হতে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত ও ৫ টা থেকে ৮ পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের ৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দুই শিফটে নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করেন।

সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস.এম. আলমগীর জানান,চট্টগ্রাম নগরীর ১৪, ১৫ ও ২১ নং সাধারণ ওয়ার্ডে ( সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-০৫) এ নির্বাচনী আচরণবিধির মনিটরিং এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। নির্বাচনী আচরণ বিধির মনিটরিং এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে “সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬” ভঙ্গের কোন ঘটনা পরিলক্ষিত হয়নি।

সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুক জানান, চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালি – ৩৩,৩৪ ও ৩৫ নং সাধারণ ওয়ার্ডে ( সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-১৩) এ নির্বাচনী আচরণবিধির মনিটরিং এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। নির্বাচনী আচরণ বিধির মনিটরিং এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে “সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬” ভঙ্গের কোন ঘটনা পরিলক্ষিত হয়নি।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট – মোঃ জিল্লুর রহমান চট্টগ্রাম নগরীর ১১, ২৫ ও ২৬ নং সাধারণ ওয়ার্ডে ( সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-১০) এ নির্বাচনী আচরণবিধির মনিটরিং করতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ জিল্লুর রহমান জানান, নির্বাচনী আচরণ বিধির মনিটরিং করতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে “সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬” ভঙ্গের কোন ঘটনা ঘটেনি তাই কোন জরিমানা করা হয়নি। তাছাড়া স্থানীয় জনগনের সাথে কথা বলা জানা যায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।

অন্যদিকে বিকাল ৫ টা হতে সন্ধ্যা ৮ টা পর্যন্ত আরেকটি টিম নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুজন চন্দ্র রায় জানান,চট্টগ্রাম নগরীর ১৬, ২০ও ৩২নং সাধারণ ওয়ার্ডে ( সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-৭) এ নির্বাচনী আচরণবিধির মনিটরিং করতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। নির্বাচনী আচরণ বিধির মনিটরিং করতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে “সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬” ভঙ্গের কোন ঘটনা ঘটেনি তাই কোন জরিমানা করা হয়নি। তাছাড়া স্থানীয় জনগনের সাথে কথা বলা জানা যায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এহসান মুরাদ জানান, চট্টগ্রাম নগরীর ৩৯, ৪০ ও ৪১ নং সাধারণ ওয়ার্ডে নির্বাচনী আচরণবিধির মনিটরিং করতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে “সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬” ভঙ্গের কোন ঘটনা দৃষ্টিগোচর হয়নি।

এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা আফরিন জানান, চট্টগ্রাম নগরীর ৯,১০ ও ১৩ নং সাধারণ ওয়ার্ডে এ নির্বাচনী আচরণবিধির মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। নির্বাচনী আচরণ বিধির মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে “সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬” ভঙ্গ করে ব্যানার ও পোস্টার লাগানোয় স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় সেগুলো নামিয়ে ফেলা হয় এবং প্রার্থীদের টেলিফোনে মৌখিক ভাবে সতর্ক করা হয়।|

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী জানান,চট্টগ্রাম নগরীর ২৮, ২৯ ও ৩৬ নং সাধারণ ওয়ার্ড এবং সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-১১ এ নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালন নিশ্চিত করতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ২৯ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী আজিজ উর রশিদ এর পক্ষের এক সমর্থককে “সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬” এর ৮(৮) ধারা লঙ্ঘন করে যানবাহনে পোস্টার সাঁটানোর দায়ে ৩১(১) ধারায় ৫০০(পাঁচশত টাকা) অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। এসময় কয়েকজন প্রার্থীকে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা মেনে প্রচারণা চালাতে সতর্ক করা হয়। এছাড়া ২৭, ৩৭, ৩৭ নং ওয়ার্ড এলাকায় আচরণ বিধি প্রতিপালনে অভিযান পরিচালনা করা হয়। কোন জরিমানা হয় নি।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুরাইয়া ইয়াসমিন জানান, চট্টগ্রাম নগরীর ২২,৩০ ও ৩১ নং সাধারণ ওয়ার্ডে নির্বাচনী আচরণবিধির মনিটরিং এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। নির্বাচনী আচরণ বিধির মনিটরিং এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে “সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬” ভঙ্গের কোন ঘটনা পরিলক্ষিত হয়নি।

সিএস /কেসিবি /১১ঃ৩০এএম

ট্যাগ :