বুধবার, ৮ জুলাই ২০২০ ২৪শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, সময় : রাত ১:৩৩

লোহাগাড়ায় মেহেদীর রং না শুকাতেই গৃহবধূর মৃত্যু,প্রেমিকা নিয়ে স্বামী পলাতক


প্রকাশের সময় :২৫ মে, ২০২০ ৮:৪৮ : অপরাহ্ণ

 

লোহাগাড়া প্রতিনিধিঃ

লোহাগাড়ায় হাতের মেহেদী রং শুকাতে না শুকাতেই নাছিমা আকতার মুন্নী (২০) নামের গৃহবধূর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে লোহাগাড়া থানা পুলিশ।

গত ২৩ মে ভোররাতে এ ঘটনাটি ঘটেছে। খবর পেয়ে লোহাগাড়া থানা পুলিশের সেকেন্ড অফিসার এসআই আব্দুল হক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মৃতদেহ চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

স্হানীয় সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের আলী সিকদার পাড়া গ্রামের আহমদ কবিরের কন্যা মুন্নীর সাথে
বিগত ২মাস পুর্বে ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক চরম্বা মজিদার পাড়া গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে আনোয়ারের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়।
আনোয়ার হোসেন পেশায় সিএনজি চালক।
কিন্তু আনোয়ার ওই এলাকার এক প্রবাসীর স্ত্রী(২ সন্তানের জননীর) সাথে দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়ায় আসক্ত ছিল। বিবাহের পর আনোয়ারের স্ত্রী মুন্নী পরকীয়া বিষয়ে জানতে পারলে অনেক বার তার স্বামীকে বাঁধা প্রদান করেন। তাতে কাজের কাজ কিছুই হয়নি।

ঘটনার দিন নিহতের স্বামী চিৎকার করে ডাক দেন তার স্ত্রী ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে। বাড়ির আশপাশের লোকজন এসে ফাঁসিতে ঝুলন্তবস্থায় উদ্ধার করে মুন্নিকে। ঘটনার পরপরই লোকজন বুঝে ওঠার আগে নিহতের স্বামী আনোয়ার ও বাড়ির পার্শ্ববর্তী পরকীয়ায় যার সাথে সম্পর্ক ছিল প্রবাসী সৈয়দ আহমদের স্ত্রী মনোয়ারা বেগমকে নিয়ে পালিয়ে যায়।

তবে, সে কি কারনে আত্মহত্যা করেছে এখনো পর্যন্ত জানা যায়নি।

নিহত মুন্নীর বড় ভাই মাহফুজুর রহমান জানান, অনেক বেশী আশা ভরসা নিয়ে গত ২২মার্চ তার আদরের ছোট বোনকে সিএনজি চালক আনোয়ার সাথে বিবাহ দিই। তার ছোট বোন ধৈর্য নিয়ে সংসার চালিয়ে যাচ্ছিলেন। তার বোনের স্বামী আনোয়ার একই গ্রামের বাড়ীর পার্শ্বে প্রবাসী সৈয়দ আহমদের স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের সাথে দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়ায় আসক্ত ছিল। এসব দেখে তার বোন স্বামীকে ফিরিয়ে আনতে চেয়েছিল। বার বার বাঁধা দিয়েছিল।আমরা খবর পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে যায়।আমার বোনের স্বামী আনোয়ার ও পার্শ্ববর্তী পরকীয়ায় আসক্ত প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়ে যায়। তার বোনকে আনোয়ার পরিকল্পিভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন তিনি। সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে সুষ্ট তদন্তের জন্য হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

লোহাগাড়া থানার ওসি জাকের হোসাইন মাহমুদ বলেন, দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।পোস্ট মডেল রিপোর্ট পেলেই প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এ ব্যাপারে লোহাগাডা থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।