মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সময় : সন্ধ্যা ৬:২২

সিকদার গ্রুপের এমডি রন হক সিকদার আটকের পর জামিনে মুক্ত


প্রকাশের সময় :১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ৭:০১ : অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

হত্যাচেষ্টার মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া সিকদার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রন হক সিকদারের জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ শুক্রবার ১২ ফেব্রুয়ারী দুপুর সোয়া ৩টার দিকে ঢাকা মহানগর হাকিম মো. আশেক ইমাম এ রায় ঘোষণা করেন।

গ্রেপ্তারের প্রায় পাঁচ ঘণ্টার মধ্যেই জামিন পেলেন রন হক সিকদার। রায়ে মো. আশেক ইমাম বলেন, মানবিক দিক বিবেচনা করে আগামী ১০ শে মার্চ পর্যন্ত তাকে জামিন দেওয়া হলো।

 

আদালতের জেনারেল রেকর্ডিং অফিসার (জিআরও) পুলিশের উপপরিদর্শক মো. আলমগীর হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আদালত পাঁচ হাজার টাকা বন্ডে পরবর্তী ধার্য তারিখ ১০ মার্চ পর্যন্ত তার অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন।

 

এর আগে মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) উপপরিদর্শক (এসআই) মো. রিপন উদ্দিন তাকে আদালতে হাজির করেন। গ্রেপ্তারের পরে তাকে কোর্ট প্রিজন সেলে রাখা হয়। পুলিশের পক্ষ থেকে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত রন হক সিকদারকে আটক রাখার আবেদন জানানো হয়েছিল।

 

এদিন সকাল ১০টার দিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে একটি গোয়েন্দা শাখার গুলশান বিভাগের একটি দল রন হক সিকদারকে গ্রেপ্তার করে। বাবার মৃত্যুর কারণে তিনি ঢাকায় এসেছিলেন।

 

এক্সিম ব্যাংকের দুই কর্মকর্তাকে নির্যাতন ও গুলি করে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে সিকদার গ্রুপ অব কোম্পানিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রন হক সিকদার ও তার ভাই দিপু হক সিকদারের বিরুদ্ধে গত বছরের ১৯ মে রাজধানীর গুলশান থানায় মামলা করে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

 

মামলার বিবরণীতে বলা হয়েছে, গত বছরের ৭ মে রন ও দিপু এক্সিম ব্যাংকের এমডি মুহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া ও অতিরিক্ত এমডি মুহাম্মদ ফিরোজ হোসনেকে একটি অ্যাপার্টমেন্টে বন্দি করে রাখা হয়। তাদেরকে নির্যাতন করা হয়েছে, গুলি করে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে। পরে সাদা কাগজে সই নিয়ে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়। সিকদার গ্রুপ ব্যাংকটির কাছে ৫০০ কোটি টাকা ঋণ প্রস্তাব দিলে এর বিপরীতে গ্রুপের বন্ধকি সম্পত্তি পরিদর্শনে যান ব্যাংকের দুই কর্মকর্তা। সেসময় এ ঘটনা ঘটে।

পরবর্তীতে ২৫ মে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে আরোপিত বিধিনিষেধের মধ্যেই ব্যক্তিগত এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে দেশ ছাড়েন দুই ভাই। থাইল্যান্ড থেকে সিকদার গ্রুপের দুই ভাইয়ের আগাম জামিন আবেদন করা হয়।

এরপর জুলাই মাসে ‘বিধিবহির্ভূতভাবে জামিন আবেদন’ করার কারণে সিকদার গ্রুপের মালিক দুই ভাইকে ১০ হাজার পিপিই জরিমানা করে হাইকোর্টের একটি ভার্চুয়াল বেঞ্চ। পিপিইগুলো প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

উল্লেখ্য,গত বুধবার সিকদার গ্রুপের চেয়ারম্যান ও গ্রেফতার হওয়া রন হক সিকদারের বাবা জয়নুল হক সিকদার মারা যান।

 

সিএস/ কেসিবি /৬ঃ৫৯পিএম

 

 

ট্যাগ :