মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সময় : দুপুর ২:১৩

হাটহাজারী ও সীতাকুণ্ডে ৬ অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদ


প্রকাশের সময় :১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১০:২৭ : পূর্বাহ্ণ
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

পরিবেশগত ছাড়পত্র ও জেলা প্রশাসকের ইট পোড়ানো লাইসেন্সবিহীন অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে উচ্ছেদ অভিযানের অংশ হিসেবে পরিবেশ অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসন চট্টগ্রামের সম্মিলিত অভিযানে পরিবেশ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের আওতাধীন চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী ও সীতাকুন্ড উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ ভাবে গড়ে উঠা ৬ টি ইটভাটা ভেঙে গুড়িয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার ১০ ফেব্রুয়ারী সকাল ১০ঃ০০ টা থেকে বিকাল ৫ঃ০০ টা পর্যন্ত পরিচালিত অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল আলম ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারজান হোসাইন । অভিযানে চট্টগ্রাম পরিবেশ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শেখ মোজাহিদ ও সহকারী পরিচালক আফজারুল ইসলাম, র্যাব, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

দিনব্যাপি পরিচালিত অভিযানে হাটহাজারীতে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারজান হোসাইন এবং সীতাকুণ্ডে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল আলম। অভিযানে হাটহাজারী চারিয়া এলাকার মেসার্স সেঞ্চুরী ব্রিকস ম্যানুঃ, মেসার্স শাহেন শাহ ব্রিকস ফিল্ড, মেসার্স গাউছিয়া ব্রিকস ওয়ার্কস, মেসার্স চট্রলা ব্রিকস ম্যানুঃ ও মীর্জাপুর সরকারহাট এলাকার মেসার্স মীর্জাপুর ব্রিকস ইন্ডাস্ট্রিজ এবং সীতাকুন্ডের বারবকুন্ডের নুরজাহান ব্রিক্স লিমিটেডসহ ৬ টি ইটভাড়া ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল আলম জানান, বারবকুন্ড এলাকায় অবস্থিত নুরজাহান ব্রিক্স লিমিটেড দীর্ঘদিন ধরে কোন ধরণের ছাড়পত্র ছাড়া অবৈধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। এটি প্রতিনিয়ত পরিবেশ ধ্বংস করে চলেছে। অভিযানে ইটভাটাটির চিমনীসহ গুড়িয়ে দিয়ে এগুলোর কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়। অভিযানে কাঁচা ইট ও ইট তৈরীর সরঞ্জামাদি ধ্বংস করা হয়। অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারজান হোসাইন জানান, হাটহাজারীর বিভিন্ন এলাকায় অসাধু মালিকগণ দীর্ঘদিন ধরে বেশ কিছু ইটভাটা অবৈধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। তাদের কাছে ইটভাটা ব্যবসা পরিচালনা করার কোন ধরণের ছাড়পত্র নেই। এসব অবৈধ ইটভাটা প্রতিনিয়ত পরিবেশ ধ্বংস করে চলেছে। অভিযানে মেসার্স সেঞ্চুরী ব্রিকস ম্যানুঃ, মেসার্স শাহেন শাহ ব্রিকস ফিল্ড, মেসার্স গাউছিয়া ব্রিকস ওয়ার্কস, মেসার্স চট্রলা ব্রিকস ম্যানুঃ ও মীর্জাপুর সরকারহাট এলাকার মেসার্স মীর্জাপুর ব্রিকস ইন্ডাস্ট্রিজ নামে ৫টি অবৈধ ইটভাটা চিমনীসহ গুড়িয়ে দিয়ে এগুলোর কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়। অভিযানে কাঁচা ইট ও ইট তৈরীর সরঞ্জামাদি ধ্বংস করা হয়। অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

পরিবেশ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আফজারুল ইসলাম জানান, উচ্চ আদালতের নির্দেশে আজকে হাটহাজারী ও সীতাকুন্ডের বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ ভাবে গড়ে উঠা ৬টি ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালিত হয় । হাটহাজারীতে ৫টি ও সীতাকুন্ডে নুরজাহান ব্রিক্স লিমিটেড নামে ১টি ইটভাটা ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। যে গুলোর কোন বৈধ কাগজপত্র ও অনুমোদন নেই। অবৈধভাবে গড়ে উঠা সকল ইটভাটা ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়া হবে।

সিএসপি/কেসিবি/৭ঃ৪৫পিএম

ট্যাগ :